তাজা খবর:
বুধবার, ১১ শ্রাবণ১৪২৪, ২৫ জুলাই২০১৭ রাত ২:৩১

বৃষ্টিপাতে আশাশুনির কাদাকাটি হাইস্কুলের পুকুরের পাড়ে ধ্বস ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন মালামাল ক্ষতিগ্রস্থ

বৃষ্টিপাতে আশাশুনির কাদাকাটি হাইস্কুলের পুকুরের পাড়ে ধ্বস ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন মালামাল ক্ষতিগ্রস্থ

মইনুল ইসলাম, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি আরার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পুকুরের পাড়ে ধ্বস নেমে পুকুরের পাশ দিয়ে থাকা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন মালামাল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সরোজমিনে গিয়ে জানাগেছে, এলাকার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাদাকাটি আরার মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি যে জায়গাজুড়ে অবস্থিত তার সামনের অংশে এলাকার মানুষের বিশুদ্ধ পানি পান করার লক্ষ্যে পুকুর কাটা হয়েছিল। সেটি পুনরায় গভীরভাবে সংস্কার করে তার উত্তরপাশে পানির ফিল্টার স্থাপন করা হয়। যে পানি অত্র এলাকার জনসাধারণ পান করে থাকেন। পুকুরের দক্ষিণপাশে কুল্যা-দরগাহপুর সড়ক থাকায় অনেক আগে স্কুল কর্তৃপক্ষ সেখানে স্কুলের উন্নয়নকল্পে ১৩টি দোকান তৈরী করেন। সেগুলোকে ভাড়া দেওয়া হয়েছিল এবং সেখান থেকে একটি নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ স্কুল ফান্ডে ভাড়াটিয়ারা দিত।

গত কয়েক দিনের বৃষ্টিপাতে পুকুরের পাড় ভেঙ্গে সেখান থেকে ৬টি দোকান ভেঙ্গে গিয়ে ব্যবহারের একেবারেই অনুপযোগি হয়ে পড়েছে এবং তার ভিতরে থাকা ব্যবসায়িদের বিভিন্ন মালামাল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। যার ফলে স্কুল ঐ দোকান বাবদ ভাড়া থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এবং পাড় ভেঙ্গে নিচে পড়ায় ঐ পানি পান করারও অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে কাদাকাটি আরার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আ ক ম আলাউল হকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন ঐ দোকানগুলো তৈরী করার মত টাকা স্কুল ফান্ডে নেই। যদি জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ, উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ, এলাকার বিত্তবানরা বা  বিভিন্ন সংস্থা বিষয়টি নজরে নিতেন তাহলে এলাকার মানুষ বিশুদ্ধপানি পান করতে পারতেন ও দোকান তৈরী হলে স্কুল ফান্ডে কিছু অর্থ আসতো যা স্কুলের উন্নয়নে কাজে লাগতো এবং ভাড়াটিয়ারা সেখানে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান করার মাধ্যমে তাদের সংসারের ব্যয় বহন করতো। এ বিষয়ে এলাকার সচেতন মহল, শিক্ষকমন্ডলী ও অবিভাবকবৃন্দ যথাযথ কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Attachments area