শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৭
প্রবাসী সন্ত্রাসীর নির্দেশে সিদ্দিক হত্যা: সিটিটিসি
নিজস্ব প্রতিবেদক, ৭১ সংবাদ ডট কম
Published : Wednesday, 6 December, 2017 at 4:59 PM

প্রবাসী সন্ত্রাসীর নির্দেশে সিদ্দিক হত্যা: সিটিটিসিরাজধানীর বনানীতে অফিসে ঢুকে আদম ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমানকে ‘প্রবাসী সন্ত্রাসীর নির্দেশে’ হত্যা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলাম। বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে বর্তমানে ইউরোপে অবস্থান করছেন এই সন্ত্রাসী।

বুধবার (৬ ডিসেম্বর) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান তিনি। 

এরআগে গতকাল মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে গুলশানের কালাচাঁদপুর এলাকা থেকে সিদ্দিকুর হত্যার নেতৃত্বদানকারী হেলাল উদ্দিনকে (৩৮) গ্রেফতার করে ডিএমপি’র কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ও ডিবি (উত্তর) বিভাগ। 

ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ ও প্রাপ্ত তথ্যসমূহ বিশ্লেষণ করে তথ্য-প্রযুক্তির সহায়তায় হেলালকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ এবং বাকী আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

গ্রেফতারকালে হেলালের কাছ থেকে ৪টি ৭.৬৫ এমএম পিস্তল, ১টি ৯ এমএম পিস্তল ও ৯ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

ডিবির প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হেলাল উদ্দিন জানান, তার নেতৃত্বেই ব্যবসায়ী সিদ্দিক হোসাইনকে হত্যা করা হয়। তার বিরুদ্ধে গুলশান থানায় হত্যা ও অস্ত্র মামলাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। 

এ ব্যাপারে সিটিটিসি’র অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, ‘ইউরোপ প্রবাসী এক সন্ত্রাসী ঢাকায় তার বন্ধু হেলাল উদ্দিনকে (৩৮) ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর হত্যার নির্দেশ দেয়। পরে হেলাল উদ্দিন কন্ট্রাক্টে ওই নির্দেশ বাস্তবায়ন করেন। তবে হত্যার কারণ সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি।’

মনিরুল ইসলাম আরও বলেন, ‘২০১৩-১৫ সালে দেশে জ্বালাও-পোড়াওয়ের সঙ্গেও ওই প্রবাসী জড়িত ছিল। তার বিরুদ্ধে দেশে অনেক মামলাও আছে। সে সিদ্দিককে হত্যা করতে বন্ধুকে নির্দেশ দেয়। সিদ্দিক ছাত্রদলের মধ্যম সারির নেতা ছিল।’

তিনি বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডে মোট ৬ জন অংশ নেয়। হেলাল ছিল পরিকল্পনাকারী ও অপারেশন কমান্ডার। ঘটনার দিন ভেতরে ৪ জন প্রবেশ করে। যাদের দুজনের মাস্ক পরা ছিল, একজনের ক্যাপ পড়া ছিল এবং অন্যজনের মুখে কিছুই ছিল না। তারা হত্যাকাণ্ডে মোট ২৫ রাউন্ড গুলি ব্যবহার করে। এরপর তারা বের হয়ে বাইরে থেকে অফিসের দরজা লাগিয়ে চলে যায়। এসময় হেলাল ও তার আরেক সহযোগী বাইরে দাঁড়িয়ে ঘটনা মনিটরিং করেন।’

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘সরাসরি হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয়া চারজনের মধ্যে দুজনকে আমরা শনাক্ত করেছি। তারা হলো- পিচ্চি আল আমিন ও সাদ্দাম। অপর দুজনকে শনাক্তের চেষ্টা চলছে। গ্রেফতার হেলালকে ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। রিমান্ডে নেওয়ার অনুমতি পেলে তাকে এ বিষয়ে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।’

তিনি জানান, ‘ঘটনার দিন গ্রেফতার হওয়া হেলাল তার প্রবাসী বন্ধুর নির্দেশনা মোতাবেক ভাড়াটিয়া ৫ জন পেশাদার খুনিসহ ওই রিক্রুটিং এজেন্সিতে হামলা চালায়। এসময় এই ৬ জনের প্রত্যেকের হাতে আগ্নেয়াস্ত্র ছিল। হত্যার পরিকল্পনাকারী হেলাল উদ্দিনসহ একজন দেওয়ালের বাইরে অবস্থান করে এবং মুখোশধারী ৪ জন এস মুন্সি ওভারসীজ রিক্রুটিং এজেন্সির ভেতরে প্রবেশ করে সিদ্দিককে গুলি করে হত্যা করে। এসময় হেলাল অপারেশনাল কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন।’

সিটিটিসি’র এই কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত অস্ত্রসমূহ সরবরাহ করে ঘটনার পর অস্ত্রগুলো তার হেফাজতে রাখে বলে স্বীকারোক্তিতে জানিয়েছে হেলাল। হেলালের প্রবাসী বন্ধুসহ অপর আসামিদের শনাক্তসহ গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত আছে।’

উল্লেখ্য, গত ১৪ নভেম্বর রাতে ‘এমএস মুন্সি ওভারসিজ’ নামে রিক্রুটিং এজেন্সির কর্ণধার সিদ্দিক হোসেন মুন্সিকে (৫০) গুলি করে হত্যা করে ৪ দুর্বৃত্ত। নিহত সিদ্দিকুরের বুকের বামপাশে একটি গুলি ঢুকে পিঠের ডান পাশ দিয়ে বের হয়ে যায়। আর একটি গুলি তার বাম হাতে লাগে। এসময় ওই প্রতিষ্ঠানের ৩ কর্মকর্তা মির্জা পারভেজ (৩০), মোখলেসুর রহমান (৩৫) ও মোস্তাফিজুর রহমান (৩৯) গুলিবিদ্ধ হন। 

এ ঘটনায় ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টার দিকে বনানী থানায় নিহত ব্যবসায়ী সিদ্দিকের স্ত্রী জোৎস্না বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা চারজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

নিহত সিদ্দিক হোসেন মুন্সি তার স্ত্রী জোসনা বেগম, দুই মেয়ে সাবরিনা সুলতানা ও সাবিহা সিদ্দিক এবং ছেলে মেহেদী হাসানকে নিয়ে রাজধানীর উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরের ৭ নম্বর সড়কের একটি বাসায় থাকেন। তাদের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায়। 

এদিকে সিসিটিভির ফুটেজে চারজন সন্দেহভাজন হত্যাকারীকে চিহ্নিত করে পুলিশ। তাদের গ্রেফতারে নগরবাসী তথা জনসাধারণের সহায়তা চেয়েছিলো ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। এরপর গত ২৩ নভেম্বর বনানী থানা পুলিশের কাছ থেকে সিদ্দিক হোসেন মুন্সি হত্যা মামলার তদন্ত ভার ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়।
৭১সংবাদ ডট কম এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
আরও খবর


সর্বশেষ সংবাদ
ছায়েদুল হকের জানাজা কাল
রাষ্ট্র ক্ষমতার মালিক হওয়ার স্বপ্ন পূরণ হয়নি জনগণের
দেশকে কলঙ্কমুক্ত করতে বিএনপি-জামায়াত বর্জন করতে হবে : ইনু
দ্বিতীয় ম্যাচেই সাকিবদের হার
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
ছায়েদুল হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক
জামায়াতের বিষয়ে একটা জটিলতা আছে : কাদের
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার দাবিতে বেরোবিতে নীলদলের মানববন্ধন
‘টি-টেন’ টুর্নামেন্টের সময়সূচি
ফেঁসে গেলেন মোস্তাফিজ
আনুশকা-বিরাটের আয় কত?
সানি লিওনের ‘ভয়ে কাঁপছে’ ভারত সরকার
ঈশ্বরদী-পাবনা ট্রেন চলাচল শুরু
রাম সেতু মানুষের তৈরি!
Chief Advisor: A K M Mozammel Houqe MP
Minister, Ministry of Liberation War Affairs, Government of the People's Republic Bangladesh.
Editor & Publisher: A H M Tarek Chowdhury
Sub-Editor: S N Yousuf
Chief Reporter: Nazmul Hasan Babu
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ৭১সংবাদ, ২০১৭
প্রধান কার্যালয় : ৫৩, মডার্ন ম্যানশন (১৪তলা), মতিঝিল বাণিজ্যিক এলাকা, ঢাকা-১০০০
বার্তাকক্ষ : +৮৮-০২-৯৫৭৩১৭১, ০১৬৭৭-২১৯৮৮০, ০১৬২২-৩৩৩৭০৭, ০১৮৫৫-৫২৫৫৩৫, ই-মেইল :71sangbad@gmail.com, news71sangbad@gmail.com, Web : www.71sangbad.com